অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ

alokitolangadu@gmail

0 ১২০

দৈনিক আলেকিত লংগদু ডেক্সঃ

গত ১৬ মার্চ ২০২৪ইং তারিখে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায়  ‘লংগদুতে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ প্রকাশ করা হয়।

প্রকাশিত সংবাদটি কেউ আমার বিরুদ্ধে  উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মনগড়া ভাবে করার জন্য  সাংবাদিকদের সহযোগীতা করেছে। যার কারণে মাইনীমুখ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিঘ্নিত হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

প্রতিবেদক উক্ত সংবাদটি কারও দেওয়া ভুল তথ্যর উপর ভরসা করে করেছেন বলে আমার কাছে প্রতিয়মান হয়েছে। সংবাদে প্রকাশ করা হয় যে, প্রধান শিক্ষক নয় ছয় করে স্কুল চালিয়ে যাচ্ছে।যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

স্কুলের সংস্কারের বরাদ্ধের টাকা ম্যানেজিং কমিটি সহকারে কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে, যা প্রকৌশল বিভাগ তদারকি হয়ে কাজ সুষ্ঠ সম্পাদন হওয়ার সনদ প্রদান করেন। সংবাদে গাছ কাটার কথা উল্লেখ করা হয়েছে জবাবে জানাতে চাই, ম্যানেজিং কমিটির রেজুলেশন করে স্কুলের নাম ফলক দৃশ্যমান ও স্কুলভবনের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির জন্য
গাছের ডাল পালা কাটা হয়েছে। আমি পূর্ববর্তী স্কুলে থাকাকালীন সময়ে কোন নারী শিক্ষককে কুপ্রস্তাব দিয়েছি কথাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট। যা আমাকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে।

সংবাদে আমার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করার কথা উল্লেখ করা হয়েছে এ কথাটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। সংবাদে অনৈতিক অভিযোগে আগের কর্মস্থল থেকে আমাকে অন্য কর্মস্থলে বদলী ও উপজেলা পরিষদে আমার মুচলেকা দিয়েছি উল্লেখ করা হয়েছে। সেটা তখন শিক্ষক সমিতির এক নেতার আপত্তির কারণে আমার কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে ছিল যা পরবর্তীতে ঐ বিষয়ে আমার কোন সংশ্লিষ্টতা না থাকায় সেই মুচলেকাটি বাতিল করা হয়।

এ ধরনের মিথ্যা তথ্য যারা দিয়েছে, তারা পরিকল্পিত ভাবে আমাকে  আমার মানসম্মান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুন্ন করেছে। এহেন কর্মকান্ডের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

মোঃ আনোয়ার হোসেন
প্রধান শিক্ষক মাইনীমুখ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় লংগদু, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।