রাঙ্গামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের ফৌজদারী মামলার অভিযোগ দায়েরের জন্য নতুন নিয়ম চালু

0 ৭৯

আব্দুর রাজ্জাকঃ

রাঙ্গামাটি জেলায় রাঙ্গামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের ফৌজদারী মামলার অভিযোগ দায়েরের জন্য নতুন নিয়ম চালু করেছে আদালত। গত রবেবার রাঙ্গামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এএনএম মোরশেদ খান স্বাক্ষরিতে এক আদেশ জারি করে এ সব তথ্য জানিয়েছেন। ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করতে পাঁচটি নিয়ম অনুসরণ করার জন্য এই নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।
গত রবিবার রাঙ্গামাটির চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এএনএম মোরশেদ খান এক বিবৃতিতে বলেন, করোনাকালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনার আলোকে ফৌজদারি অভিযোগ দায়েরের উদ্দেশ্যে নিয়োজিত আইনজীবিকে তার নিজস্ব ই-মেইল আইডি থেকে রাঙ্গামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের পলসৎধহমধ১@মসধরষ.পড়স নির্ধারিত ফরমেটে মেইল করতে হবে। ইমেইল পাওয়ার পর ফৌজদারি অভিযোগ দায়েরের তারিখ ও সময় নির্ধারণ করে ই-মেইলে আইনজীবিকে আদারত থেকে জানিয়ে দেয়া হবে। ফৌজদারি অভিযোগ দায়েরর পর এ তথ্য পাওয়ার একদিন পর শুনানির জন্য দিন ধার্য্য করা হবে। কোন ভাবেই ফৌজদারি অভিযোগ দরখাস্তের সফট কপি ই-মেইল করা যাবে না।
নিয়মের মধ্যে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, আদালতের শুনানির দিন সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশনার আলোকে শুধুমাত্র বাদী ও আইনজীবি অংশ নিতে পারবেন। সেক্ষেত্রে প্রত্যেককে সামাজিক দরিত্ব নিশ্চিত করতে হবে। তারপরই ফৌজদারি অভিযোগ গ্রহণ করা হবে।
ফৌজদারি অভিযোগ শুনানির ১৫ মিনিট আগে আইনজীবি তার মক্কেলকে নিয়ে আদালত প্রাঙ্গন, আইনজীবি সমিতি ভবন, নিকটবর্তী স্থানে অবস্থান করতে হবে। আদালতের ব্যঞ্চ সহকারী মোবাইল ফোনে কিংবা মাইক্রোফোনে আইনজীবিকে ফোন করলেই তিনি ও তার মক্কেল আদালতের ভিতরে এজলাসে ঢুকতে পারবেন। ব্যঞ্চ সহকারীর আহবান ছাড়া কেউ এজলাসে ঢুকতে পারবেন না। যদি কোউ এ আইন অমান্য করেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আদালত থেকে জারি করা অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।