লংগদুতে চির বিদায় নিলেন বীর মুক্তিযুদ্ধা মোঃ রুহুল আমিন । রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

0 ৭৬

। সাকিব আলম মামুন।
রাংগামাটির লংগদু উপজেলায় চির বিদায় নিলেন বীর মুক্তিযুদ্ধা মোঃ রুহুল আমিন । ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন।
শনিবার (১০ অক্টোবর) উপজেলার ৬নং মাইনীমূখ ইউনিয়নের গাঁথাছড়ার এফআইডিসি এলাকায় সকাল সাড়ে আটটায় তার নিজ বাড়ীতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মোঃ রুহুল আমিন দীর্ঘদিন ধরে নানা জঠিল রোগে ভুগছিলেন।
শনিবার বাদ আসর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মাইনুল আবেদীন, লংগদু থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মোহাম্মদ নুর এর উপস্থিতিতে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় “গার্ড অব অনার” দেওয়া হয়। এছাড়াও সাবেক উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার মীর শাহনেওয়াজ ফারুক, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মোঃ খোরশেদ আলম, মুক্তিযোদ্ধা হযরত আলী, অন্যান্য মুক্তিযো্দ্ধা সহ সদস্য এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
শুরুতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া দিয়ে মরহুম মুক্তিযুদ্ধা মোঃ রুহুল আমিন এর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে জানাজা শেষে তাকে গাথাছড়ার এফআইডিসি টিলাস্থ নিজ এলাকার জামে মসজিদের কবরস্থানে দাপন করা হয়।
স্বজনরা জানায়, মরহুম বীর মুক্তিযুদ্ধা মোঃ রুহুল আমিন ১৯৫৪ সালের ১লা জুলাই শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার বামে সদ্ধি ইউনিয়নের কায়দা বীরপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম ছিল হাসেম আলী ও মাতার নাম ছিল জোহরা বেগম। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা সংগ্রামে ১১নং সেক্টরে অধীনে ময়মনসিংহ অঞ্চলে সক্রিয়ভাবে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে এসএসসি পাস করে কৃষি ডিপ্লোমা সম্পন্ন করে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হিসেবে লংগদু উপজেলা কৃষি অফিসে যোগদান করেন এবং ২০১৫ সালে চাকুরী থেকে অবসর নেন।
মরহুম রুহুল আমিন পারিবারিক জীবনে স্ত্রীসহ ৫ ছেলে- ৫ মেয়ে এবং অনেক আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। এই বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাগণ ও উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাগন।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।