রাঙ্গামাটি-২৯৯ আসনে তৃণমূল বিএনপির মনোনয়ন পেলেন লংগদুর হাফেজ মিজানুর রহমান

alokitolangadu@gmail.com

0 ৪৭৪

।।মো. গোলামুর রহমান।।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে তৃণমূল বিএনপির মনোনয়ন ফরম পেলেন পাবর্ত্য চট্টগ্রাম গনজাগরণ পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ হাফেজ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। তাকে চট্টগ্রাম বিভাগের রাঙ্গামাটি পার্বত্য বৃহত্তম জেলা  (রাঙ্গামাটি-২৯৯) আসনে তৃণমূল বিএনপি থেকে মনোনয়ন দিয়েছেন।

গত ১৮নভেম্বর রাজধানীর তোপখানা রোডে দলের কার্যালয়ে মনোনয়ন ফরম জমা দেন তিনি। এবং যাচাই-বাছাই করে ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে চট্টগ্রাম বিভাগের বৃহত্তম পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটি ২৯৯ আসনে মনোনয়ন দিয়েছেন দলটি। ফলে গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকায় এই তরুন  সমাজ সেবক মনোনয়ন পেয়ে কাজ করার জন্য আরো একধাপ এগিয়ে গেলেন বলে মনে করছেন দলটির নেতৃবৃন্দ।

হাফেজ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান দীর্ঘ দিন ধরেই বাসযোগ্য রাঙ্গামাটি গড়তে জনমত তৈরি করে চলেছেন। তিনি একাধারে একজন দায়ী, ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা।

কেন তিনি নির্বাচনে আসলেন এবং নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা সম্পর্কে হাফেজ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন,রাঙ্গামাটি জেলা গোটা দেশের  সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উন্নত হয়নি। স্বাধীনতার পর থেকেই প্রতিটি সরকারের অবহেলায় ছিল এই জেলা।যোগাযোগ ব্যবস্হার দূরাবস্থার ফলে বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠেছে এই জনপদ। একইসঙ্গে অনিয়ন্ত্রিত সন্ত্রাসীগোষ্ঠী এই জনপদকে হুমকির মুখে রেখেছে। আমাদের এই জেলা দেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে সহায়তা করে যাচ্ছে। অথচ এই জনপদের জীবনমান উন্নয়নে আজও কোনো মাস্টারপ্ল্যান হয়নি। বারংবার ইলেকশনে জয় লাভ করেও কোন নেতাই জাতিগত দ্বন্দ,শ্রেণীবৈষম্য, মানুষ হত্যা, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা মোচন করতে সচেষ্ট হননি। বরঞ্চ দলীয় ভেদাভেদকে আরো উস্কে দিয়েছেন সময়ে অসময়ে, ফলাফলে সাধারন জনগন শিকার হয়েছেন অনাচার,অবিচার এবং অপমমৃত্যুর।

আমি নির্বাচনে জয়ী হলে একটি  মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন করে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহযোগিতায় জনগণের সেবায় আমার ক্ষমতার ব্যবহার করতেই নির্বাচনে লড়তে চাই।

তৃণমূল বিএনপির মনোনয়ন কেন নিলেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে হাফেজ মিজান  বলেন, মানুষ পরিবর্তন চায়, দীপংকর এবং আঞ্চলিক পরিষদের বাইরে নতুন নেতৃত্ব চায়। সেই জায়গায় তৃণমূল বিএনপি নতুন সম্ভাবনা তৈরি করেছে। কিংবদন্তি নেতা নাজমুল হুদার দলে যোগ দিয়ে আমি গণমুখী এই দলের অগ্রযাত্রার সঙ্গী হতে চাই। সেইসাথে আমার কয়েকটি মূলনীতি রয়েছ তা হলো,

১.প্রতিহিংসা ও প্রতিশোধের রাজনীতি নয় বরং ধর্ম,দল,মত, জাতিগত বিভেদ নির্বিশেষে পারস্পরিক সম্প্রীতি ও ঐক্যের ভিত্তিতে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ।

২.মাদক,নিয়োগ বাণিজ্য,অবৈধ দখলদায়িত্ব, অনিয়ম ও দুঃশাসনমুক্ত নিশ্চিত সুশাসনের একটি জেলা হিশেবে রাংগামাটি কে তৈরি করবো ইনশাআল্লাহ।

৩. আধুনিক, উন্নত এবং সমৃদ্ধ একটি জেলা হিশেবে রাংগামাটি কে বাংলাদেশের মানচিত্রে তুলে ধরতবো ইনশাআল্লাহ।

৪.তরুন প্রজন্মকে রক্ষা এবং তাদের মেধার সঠিক মূল্যায়নের মাধ্যমে আদর্শ নাগরিক গড়ার লক্ষ্যে কাজ করতে চাই ইনশাআল্লাহ।

৫. নারীরা সমাজের বৃহৎ একটি অংশ এবং একইসাথে অবহেলিত ও বটে, নারীদের অধিকার এবং তাদের প্রতি সুবিচার প্রতিষ্ঠা করবো ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ আমাকে যেন সেই তাওফিক দেন আমি সবার কাছে দু’ আ প্রার্থী।

এছাড়াও আজকালের মধ্যে মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়ার কথা রয়েছে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন দুর্গম লংগদু থেকে এই প্রথম আমি ২৯৯ নং আসনে নির্বাচন করতে যাচ্ছি। এতে সকল প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং জনসাধারণের সহযোগিতা কামনা করছি।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।