বিজিবি, পুলিশ এবং বনবিভাগের যৌথ অভিযান

alokitolangadu@gmail.com

0 ৯৬
ডেক্স রিপোর্টঃ
রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় বিভিন্ন স্থানে বিজিবি, ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ এবং বনবিভাগ কর্তৃক টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা করে অবৈধ স’মিল হতে স্যালো ইঞ্জিন, করাত, কাঠ এবং অন্যান্য মালামাল জব্দ করা হয়।
০৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় যে, চরুয়াখালী বিজিবি ক্যাম্পের দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় বিভিন্ন স্থানে লাইসেন্স বিহীন স’মিল পরিচালনা করে অবৈধ সেগুন ও গামারী কাঠ চেরাই করা হচ্ছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে লংগদু উপজেলা রাজনগর ব্যাটালিয়নের আওতাধীন রাজনগর জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল শাহ্ মোঃ শাকিল আলম, এসপিপি এর দিক নির্দেশনায় সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান, বিজিবিএমএস এর নেতৃত্বে রাজনগর জোনের ৩০ জন বিজিবি সদস্য, বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, রেঞ্জ কর্মকর্তা পাবলাখালী, আমতলী পুলিশ ফাড়ির পুলিশ সদস্য যৌথভাবে চরুয়াখালী বিজিবি ক্যাম্প হতে ৫ কিঃমিঃ দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে কবিরপুর এবং ৩ কিঃমিঃ উত্তর দিকে আমতলী নামক স্থানে টাস্কফোর্স অপারেশন পরিচালনা করে।
উক্ত অভিযানে আমতলী এলাকায় মোঃ ফোরকান আহমেদ, পিতা-আলা উদ্দিন এর স’ মিল হতে স্যালো ইঞ্জিন ০১টি (২৫ ঘোড়া), করাত ১০ মিটার, কাঠ মাপার কাঠের স্লেই ০৬টি, লোহার রড ০১টি (২ ফিট), গর্জন রদ্দা ০৩ টুকরা জব্দ করা হয় এবং ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়া কবিরপুর এলাকায় মানিক মিয়া, পিতা-আমিরুল ইসলাম এর স’ মিল হতে স্যালো ইঞ্জিন ০১টি, করাত ১০ মিটার, চেরাই সেগুন কাঠ ০২ টি, চেরাই সেগুন গোলকাঠ ০১টি, গামারী ০৩ টি, কাঠ মাপার খুঁটি ০২টি, করাত কল চালনার জন্য পুলি বেল্ট ০৩টি এবং সেগুন গোল কাঠ ০৮ টি  জব্দ করা হয় এবং ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়া কবিরপুর এলাকায় মোঃ ইয়াসিন, পিতা-আব্দুস সাত্তার এর স’ মিল হতে স্যালো ইঞ্জিন ০১টি, করাত ০৫ মিটার, সেগুন গোল কাঠ ০৯ টি, গামারী গোল কাঠ ১০ টি, গর্জন রদ্দা ০১টি জব্দ করা হয় এবং ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।
উল্লেখ্য, জব্দকৃত সকল প্রকার মালামাল চরুয়াখালী বিজিবি ক্যাম্পের হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ প্রসংগে রাজনগর জোন কমান্ডার জানান, অবৈধ কাঠ চোরাচালানের বিরুদ্ধে চলমান আভিযান কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এবং ভবিষ্যতে আরো জোরদার করা হবে।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।