পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ” সেনাবাহিনী হত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান-

0 ৫৯

ডেস্ক রিপোর্টঃ

১৭-০৬-২০২৩ ইং তারিখ রুমা উপজেলায় সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন কেএনএফ মাইন বিস্ফোরণ করলে একজন সেনাবাহিনীর সৈনিক নিহিত হয় এবং একজন আহত হন।
এর আগে সার্জেন্ট হাবিবুর রহমান, সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার নাজিম উদ্দীনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। গত ১৬ মে-২০২৩ ইং তারিখ ২ জন সৈনিককে মাইন বিস্ফোরণ ও গুলি করে হত্যা করা হয় এবং একজন মেজর ও একজন ক্যাপ্টেনকে মাইন বিস্ফোরণ ও গুলি করে আহত করা হয়।
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর গর্বীত সৈনিক তুজাম হোসেনকেও সশস্ত্র সন্ত্রাসী কেএনএফ হত্যা করে।
গত ১৭ জুন কেএনএফ সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা মাইন বিস্ফোরণ করে সৈনিক মোনাফ হোসেন রাজুকে হত্যা করে এবং একজন সৈনিককে আহত করা হয়।
এই সকল হত্যা কান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান পিসিএনপির চেয়ারম্যান কাজী মোঃ মজিবর রহমান।
তিনি জানান অচিরেই সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর অপারেশন করে এই সমস্ত সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন গুলোকে আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে এবং সকল অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে সরকারের নিকট জোর দাবি জানান।
তিনি বলেন আজ পার্বত্য চট্টগ্রাম হুমকির মুখে, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী যেখানে বিদেশের মাটিতে শান্তি মিশনে গিয়ে সুনাম-অর্জন করে আর আজ নিজের দেশে অর্থাৎ পার্বত্য চট্টগ্রামে একের-পর এক বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর গর্বীত সন্তানরা জীবন দিয়ে যাচ্ছে এটা কখনোই মেনে নেওয়া যায়না এবং এভাবে চলতে পারেনা।
আজ পার্বত্য চট্টগ্রামের স্বাধীনতা স্বার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে, সন্ত্রাসী সংগঠন কেএনএফ সহ সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন গুলো পার্বত্য চট্টগ্রামকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র করছে তারা পার্বত্য চট্টগ্রামকে দক্ষিণ সুদান ও পূর্ব তিমুরের মতো একটি খ্রিষ্টান রাষ্ট্র বানাতে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে – তাদেরকে এখনই স্ব মূলে ধ্বংস করতে হবে।পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন গুলোকে তামিল টাইগারদের মতো স্ব মূলে ধ্বংস করতে তিনি সরকারের নিকট জোর দাবি জানান।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।