খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ২০১৯-২০ অর্থ বছরের শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ

0 ৭১

আলোকিত লংগদু ডেক্স:

পার্বত্য অঞ্চলের শিক্ষা বিস্তার ও শিক্ষিত জনগোষ্ঠী গড়ে তোলার লক্ষ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি দিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড। বৃত্তি প্রদান শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ২০১৯-২০ অর্থ বছরের ৭৭০ জন শিক্ষার্থীকে এ বৃত্তি দেওয়া হয়েছে। তিন পার্বত্য জেলা থেকে এবারে ৭০৬৩জন আবেদন পড়েছে। তারমধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরি অনুযায়ী ৩১% অর্থাৎ ২২১৬জন শিক্ষার্থীকে নির্বাচন করা হয়েছে। খাগড়াছড়ি জেলায় ৭৭০জন, রাঙ্গামাটি জেলায় ৭৩৬জন এবং বান্দরবান জেলায় ৭১০জন।

মঙ্গলবার (০৮ডিসেম্বর ২০২০খ্রিঃ) খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা-এনডিসি শিক্ষার্থীদের এ বৃত্তির টাকা প্রদান করেন।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য-পরিকল্পনা (উপ-সচিব) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস, খাগড়াছড়ির পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলম, খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপক শিক্ষাবিদ মধু মঙ্গল চাকমা, পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী মো: মজিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি বলেন, ‌‘মেধাবী ও আর্থিক অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সহযোগিতা হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এ শিক্ষাবৃত্তি হচ্ছে সর্বোচ্চ বিনিয়োগ। বর্তমানে এ কার্যক্রম বোর্ড বাস্তবায়ন করে আসছে। উন্নত সমৃদ্ধ আধুনিক বাংলাদেশ নির্মাণের জন্যে প্রয়োজন আলোকিত মানুষ। আলোকিত মানুষই এগিয়ে চলার বাংলাদেশকে আলোকিত করবে। একটি শিক্ষিত সমাজ গড়ে উঠলে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের সম্ভাবনার দিগন্তগুলো উন্মোচিত হবে। এজন্য প্রয়োজন শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সন্মিলিত উদ্যোগ।’ তিনি আরও বলেন, নিজেকে কখনো দুর্বল ভাববে না। একজন শিক্ষার্থী সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে নিজ সম্প্রদায়, জাতি ও দেশের জন্য কাজ করবে- এটিই তার সামাজিক দায়িত্ব।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকোশলী মো. খোরশেদ আলম, খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিতেন চাকমা ও শিক্ষার্থীরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

আপনার ইমেইল প্রদর্শন করা হবে না।