লংগদুতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে তিনটি অবৈধ স’মিল জব্দ ও জরিমানা

৭৮

লংগদুতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে তিনটি অবৈধ স’মিল জব্দ ও জরিমানা

।। ও.এফ. মুছা ।।

রাঙামাটির লংগদুতে অবৈধভাবে স’মিল (করাত কল) স্থাপন করে বনভূমির গাছ চিরাই করে ব্যবসা করার দায়ে তিনটি স’মিল জব্দ ও আর্থিকভাবে জরিমানা করেছে উপজেলা প্রশাসন ও ঝুম নিয়ন্ত্রন বনবিভাগ।

রোববার(২জানুয়ারি), লংগদু উপজেলা প্রশাসন ও ঝুম নিয়ন্ত্রন বনবিভাগের উল্টাছড়ি রেঞ্জ যৌথ উদ্যোগে উপজেলার মাইনীমুখ ইউনিয়নের কালুমাঝিরটিলা এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালতের (মোবাইল কোর্ট) পরিচালনা করে ৩টি অবৈধ স’মিল (করাত কল) বন্ধ করে তালা লাগিয়ে (সিলগালা) দেওয়া হয়। এছাড়াও তিনটি করাত কল মালিক পক্ষকে মোট ৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উল্টাছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রশীদ এর উপস্থিতিতে লংগদু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাইনুল আবেদীন এ অভিযান পরিচালনা করেন। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সময় করাত কল মালিক তিনজনই কোন বৈধ কাগজ পত্র দেখাতে পারেনি। এসময় লংগদু থানা পুলিশ ও বনবিভাগের লোকজন করাত কল তিনটিকে শিকল দিয়ে বেঁধে তালা লাগিয়ে সীল করে দেওয়া হয়েছে ।

অবৈধ করাত কলের মালিকর পক্ষগন হচ্ছে মোঃ আব্দুল হালিম’র করাত কল, রফিকুল ইসলামের করাত কল, মানুনুর রশীদের করাত কল। বনবিভাগ সূত্র জানায়, ঝুম নিয়ন্ত্রন বনবিভাগের উল্টাছড়ি রেঞ্জের আওতাধীন উপজেলার কালু মাঝির টিলা এলাকায় অবৈধভাবে করাত কল (স’মিল) বসিয়ে বনবিভাগের গাছ চিরাই করে ব্যবসা চালিয়ে আসছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে এই অভিযান পরিচালনা করা হল। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্যাট মাইনুল আবেদীন জানান যতদিন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারবে না ততদিন এই করাত কল বন্ধ (সিলগালা) থাকবে। অবৈধ স’মিল বন্ধের ব্যাপারে নিয়মিত মোবাইল কোট পরিচালনা করা হবে। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা কাজে সহযোগিতা করেন লংগদু থানা উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ বশির সহ সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা ও বনবিভাগের সদস্যগন।

মন্তব্য বন্ধ আছে তবে ট্র্যাকব্যাক ও পিংব্যাক চালু রয়েছে।