লংগদুতে ভূয়া ডাক্তার গ্রেফতার

৫৯

মো.গোলামুর রহমান,

রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলায় ডাক্তার সেজে চেম্বারে বসে রোগী দেখতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হয়েছে ভূয়া ডাক্তার মাসুদ।

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) মাইনীমুখ বাজারের একটি মেডিকেল থেকে ভ্রাম্যমান আদালত মোবাইল কোটের অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করে।

জানাযায় আটককৃত ব্যক্তির নাম, মাসুদ রানা (৪০),পিতা আব্দুল হান্না,মাতা নাসরিন বেগম লিলি,গ্রাম হাতিখানা উপজেলা,সৈয়দপুর জেলা,নীলফামারী।এর আগেও তার বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা রয়েছে।

এবিষয় জানতে চাইলে মেডিকেলের মালিক পক্ষ জানায় , লোকটি বাঘাইড়ি উপজেলায় একটি মেডিকেলে নিয়মিত রোগী দেখেন বলে আমাদের জানায় সে, আমাদের মেডিকেলের নিয়মিত ডাক্তার ছুটিতে থাকায় তাকে আমরা রোগী দেখার সুযোগ করে দেই। তিনি আমাদের বিএম ডিসির একটি নিবন্ধন নাম্বার দেখায়, অতপর আমরা তাকে চেম্বার করার সুযোগ দেই। পরবর্তীতে প্রশাসন অভিযান চালালে আমরা নিশ্চিত হই তিনি ভূয়া ডাক্তার। এর আগে আমাদেরও জানা ছিলোনা,সে আমাদেরকেও বোকা বানিয়েছে, তিনি মাসুদ করিম নামে অন্য আরেকজন চিকিৎসকের রেজিস্টার নাম্বার ব্যবহার করছে,সেটা বুঝা কঠিন ছিলো। তার এই অপকর্মের দায়বার মেডিকেল কর্তৃপক্ষ নিবেনা। তাকে পুলিশ এসে গ্রেফতার করে নিয়েগেছে। তার এই অপকর্মের বিচার হোক সেটা আমরা দাবী করছি। তার জন্য আমাদের প্রতিষ্ঠানেরও বদনাম হয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত মোবাইল কোট পরিচালনা করেন,নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লংগদু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আকিব ওসমান, এসময় উপস্থিত ছিলেন, লংগদু থানা অফিসার ইনচার্জ ইকবাল উদ্দীন, লংগদু থানার এস.আই শাহাবুর আলম সহ লংগদু থানার একটি বিশেষ টিম ও বাজারের গণ্যমান ব্যক্তিবর্গ ।

এসময় লংগদু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার এম বি বিএস বিসিএস হেলথ অ্যাসিস্ট্যান্ট সার্জেন উপস্থিত থেকে তাকে ভূয়া ডাক্তার নিশ্চিত করেন।

লংগদু থানার অফিসার ইনচার্জ বলেন, আমরা গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারি যে মাইনীমুখ বাজারের একটি মেডিকেলে একজন ভূয়া ডাক্তার রোগী দেখছে,সে সূত্র ধরে আমরা নির্বাহী কর্মকর্তা আকিব ওসমানের সহযোগীতায় মোবাইলকোট পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করি। তার বিরুদ্ধে মোবাইলকোট পরিচালনা করে দু বছরের সাজা দেওয়া হয়। আগামীকাল তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে

মন্তব্য বন্ধ আছে তবে ট্র্যাকব্যাক ও পিংব্যাক চালু রয়েছে।