লংগদুতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর উদ্বোধন হচ্ছে একদিন পর

২৮

মো. গোলামুর রহমান

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরেই ১৯৭২ সালের ২০ শে ফেব্রুয়ারি
তৎকালীন নোয়াখালী বর্তমান লক্ষীপুর জেলার রামগতি উপজেলার চড়পোড়াগাছা গ্রামে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের আশ্রয়ণ প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু হয়৷

উন্নয়নের মডেল সামনে এনে পিছিয়ে পড়া ছিন্নমুল মানুষকে মূলধারায় আনার জন্য এ প্রকল্প গ্রহণ করেন বর্তমান সরকার। এরই ধারাবাহিকতায়
ভূমিহীন, গৃহহীন ও ছিন্নমূল অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসন মুজিববর্ষের আশ্রয়ণ প্রকল্পে বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন ও ভূমিহীন থাকবে না, প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা বাস্তবায়নে আশ্রয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষের বাসস্থান নিশ্চিতকরণে সেমিপাকা একক গৃহ নির্মাণের ঘরগুলি ২ কক্ষ বিশিষ্ট ওয়াশরুম সহ সেমিপাকা হবে।

এ প্রক্রিয়া মুজিববর্ষে ১ম পর্যায়ে ২১ জানুয়ারী ২০২২ তারিখে ৬৩ হাজার ৯৯৯ টি পরিবারকে
জমির মালিকানাসহ ঘর প্রদান করা হয়। ২য় পর্যায়ে ৫৩ হাজার ৩৩০ টি ৩য় পর্যায় ৬৫ হাজার এর অধিক ঘর প্রদান করা হয়েছে।

তারই ধারাবাহিকতায় রাঙ্গামাটির লংগদুতে এ পর্যন্ত মোট বরাদ্দ হয়েছে ৩২০ টি ঘর, ইতিমধ্যে ২৮৮ টির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ৮৩ টি ঘর ২২/০৩/২০২৩ ইং তারিখ বুধবার উদ্ধোধন করা হবে। অবশিষ্ট ৩২ টির কাজ চলমান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যা উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির মাধ্যমে দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে বলে প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আকিব ওসমান।

সোমবার (২০ মার্চ) সকাল ১১টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যলয়ে প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে উক্ত বিষয় আলোকপাত করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আতাউর রাহমান,প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা এখলাছ মিঞা খান সহ প্রিন্টস ও ইলেকট্রনিকস মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ।

 

মন্তব্য বন্ধ আছে তবে ট্র্যাকব্যাক ও পিংব্যাক চালু রয়েছে।