মেধাবী ছাত্রীর দৃষ্টি শক্তি ফেরাতে একটি মানবিক আবেদন

৭৫

আল -আমিন ইমরান

লংগদু সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী ছাত্রী লাবনী আক্তার। তার শ্রেণী রোল -০১। প্রায় এক বছরের অধিক সময় ধরে মেধাবী মেয়েটির চোখে সমস্যা। দরিদ্র পরিবার সাধ্য অনুযায়ী ডাক্তার দেখিয়ে চিকিৎসা করিয়েছেন। কিন্তু, কোন সুফল হয়নি। বর্তমানে মেয়েটি তার দুই চোখ হতে একচোখে সামান্য ঝাপসা দেখতে পায়। ক্রমে ক্রমে দুটি চোঁখ অন্ধ হওয়ার উপক্রম।

 

মেয়েটির বাবা মোঃ আইউব আলী ভূমিহীন সাধারণ দিনমজুর। বাইট্টাপাড়ায় মিন্টু মাস্টারের জায়গায় আশ্রিত পরিবারটি নিতান্তই অসহায়। যেখানে একদিন কাজ না করলে পরিবারটিকে না খেয়ে থাকতে হয় সেই পরিবারের পক্ষে মেয়ের চিকিৎসা করানো অসম্ভব। তবে কি একটি মেধাবী ছাত্রী (ক্লাসে প্রথম) চিকিৎসার অভাবে অন্ধ হয়ে যাবে???????

 

গত সপ্তাহে মানবিক উদ্যোগ নিয়ে সামান্য টাকা কালেকশন করে রোগ সনাক্তের জন্য মেয়েটিকে ঢাকায় ডাক্তারের কাছে পাঠানো হয়। পরীক্ষা নীরিক্ষা করে দেখা যায় মহান সৃ‌ষ্টিকর্তা সহায় হলে চোখ অপারেশনের মাধ্যমে তার দৃষ্টি শক্তি স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আনুমানিক চিকিৎসা খরচ হবে ১,০০,০০০/- (এক লাখ) টাকা। এমতাবস্থায় মেয়েটির চিকিৎসা খরচ মানবিক উদ্যোগ ছাড়া যোগান দেয়া অসম্ভব।

 

লংগদু উপজেলার জনপ্রিয় সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “ভয়েস অব লংগদু” এর পক্ষ হতে মানবিক দৃষ্টিতে একটি মেধাবী ছাত্রীর ভবিষ্যৎ চিন্তা করে অদ্য ১৬-০৬-২০২২ খ্রিঃ তারিখ বিকাল ৫.০০ ঘটিকায় লংগদু মোটরসাইকেল সমিতির কার্যালয়ে এক জরুরী সভা শেষে লাবনী আক্তারের জন্য চিকিৎসা সহায়তা তহবিল গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। উল্লেখ্য যে, অতিদ্রত যদি চোখের অপারেশান না করা হয় তবে মেয়েটি অন্ধ হয়ে যাবে।

 

আপনারা যারা মানবিক দৃষ্টিতে একটি মেধাবী ছাত্রীর দৃষ্টি শক্তি ফিরে পেতে চিকিৎসা সহায়তায় অংশ নিতে চান তারা “ভয়েস অব লংগদু” কর্তৃক নিম্নোক্ত নির্ধারিত নম্বরে টাকা পাঠাতে পারবেন।

 

বিকাশ (পার্সোনাল)- 01568303060

নগদ (পার্সোনাল) – 01552711131

রকেট (পার্সোনাল) – 01719911997-

[বিঃ দ্রঃ- প্রতারণা এড়াতে উল্লেখিত নির্দিষ্ট নম্বর ছাড়া সহায়তা না পাঠাতে ভয়েস অব লংগদু কর্তৃক অনুরোধ করা হল। সহায়তা পাঠাতে নম্বর এবং ব্যক্তি যাচাই করে আপনার দানের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করুন। ]

মন্তব্য বন্ধ আছে তবে ট্র্যাকব্যাক ও পিংব্যাক চালু রয়েছে।