পিএসজির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিততে চান মেসি

৬৮

লিওনেল মিসে এখন পিএসজির ফুটবলার। খবরটি পূরনো, কারণ ১০ আগস্ট মঙ্গলবার বিকালের পরই সবাই জেনে গেছেন বার্সার মেসি এখন পিএসজির। শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণাই বাকি ছিল। সেটিও চলে আসে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টায়।

আর বুধবার (১১ আগস্ট) বেলা ১১টায় পিএসজির সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও সেটি শেষ পর্যন্ত তা অনুষ্ঠিত হয় বিকাল ৩টায়। তার আগেই চুক্তি সাক্ষর সম্পন্ন হয়। সে সময় দলের চেয়ারম্যান নাসের আল খেলাইফির সঙ্গে ফ্রেমবন্দী হয়েছেন মেসি। এখন অপেক্ষা পিএসজির হয়ে মেসির মাঠে নামার। আগামী ১৪ আগস্ট ঘরের মাঠে স্ট্রাসবার্গের মুখোমুখি হবে পিএসজি। এত অল্প সময়েই মেসিকে মাঠে নামানো প্রায় অসম্ভব বলা চলে। কারণ তার আগে অনুশীলনে অংশ নিতে হবে তাকে। এরপর ব্রেস্ট ও রেইমের মুখোমুখি হবে মাউরিসিও পচেত্তিনোর শিষ্যরা। এই দুই ম্যাচেও খেলার সম্ভাবনা কম মেসির। কারণ ক্লাব কর্তৃপক্ষ চাইছে সমর্থকদের সামনে ঘরের মাঠে তার অভিষেক করাতে। তাই আগামী ১১ সেপ্টেম্বর ক্লেরমন্ট ফুটের বিপক্ষেই নতুন জার্সিতে দেখা যাবে আর্জেন্টাইন মহাতারকাকে।
এদিকে পিএসজিতে যোগ দিয়ে নিজের রোমাঞ্চের কথা জানিয়ে মেসি বলেছেন, ‘প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে আমার ক্যারিয়ারের নতুন অধ্যায় শুরু করতে আমি রোমাঞ্চিত। এই ক্লাবের সবকিছুই আমার উচ্চাকাঙ্ক্ষার সঙ্গে মেলে। মেসি আরও বলেন, ‘ক্লাবটির স্কোয়াড ও কোচিং স্টাফ কতটা শক্তিশালী, আমি জানি। এই ক্লাব ও এর সমর্থকদের জন্য বিশেষ কিছু করতে আমি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। পার্ক দি প্রিন্সের (পিএসজির ভেন্যু) মাঠে নামতে আমি মুখিয়ে রয়েছি।’ পিএসজি নেইমারকে উচ্চমুল্যে কিনেছিল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আশায়। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন এখনও অধরা। মেসিকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছে এই আক্ষেপ ঘুচানোর। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডও আশাবাদী পিএসজি পারবে। সংবাদ সম্মেলনে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড বললেন, ‘এই দল প্রস্তুত। কিছু নতুন দলবদল হয়েছে, ক্লাব প্রস্তুত। আমি এখানে তাদের সহায়তা করতে এসেছি। পিএসজির সঙ্গে মেসির স্বপ্ন কী? বললেন তিনি, ‘আমার স্বপ্ন এই ট্রফি (চ্যাম্পিয়ন্স লিগ) আবারো জেতার এবং আমি মনে করি সেটা করার সবচেয়ে সেরা জায়গা হলো প্যারিস।’ অন্যদিকে ক্লাবের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী নাসের আল খেলাইফি মেসিকে নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। মেসির অবদানে পিএসজি আরও সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদী তিনি।
২৯.৬ মিলিয়ন পাউন্ডের চুক্তিতে আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে দুই বছরের জন্য নিয়ে এসেছে পিএসজি। পিএসজির চুক্তিপত্রে সইয়ের পর ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকের রেকর্ড গড়লেন মেসি। আয়কর বাদ দিয়ে পিএসজিতে বার্ষিক তিন কোটি ৩৮ লাখ পাউন্ড বেতন পাবেন বার্সেলোনার সাবেক অধিনায়ক। যা এমবাপ্পের চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি! পিএসজিতে বর্তমানে এক কোটি ৬১ লাখ পাউন্ড পারিশ্রমিক পাচ্ছেন বিশ্বকাপজয়ী ফরাসি সেনসেশন। এতদিন ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান ও পিএসজিতে সর্বোচ্চ বেতন ছিল নেইমারের। যা বেড়েছে নতুন চুক্তির পর। নতুন চুক্তি অনুসারে ২০২৫ সাল পর্যন্ত পিএসজিতে থাকবেন নেইমার। ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার পাবেন বার্ষিক দুই কোটি ৫৫ লাখ পাউন্ড। যা ফ্রেঞ্চ ফুটবলে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকের রেকর্ড। নেইমারের সেই রেকর্ড ভাঙতে চলেছেন তারই বন্ধু মেসি।
এমনিতেই নেইমার-এমবাপ্পে জুটি এই মুহূর্তে পৃথিবী সবচেয়ে ভয়ঙ্কর জুটি। এখন আবার এসেছেন মেসি। শুধু আক্রমণ নয়, রক্ষণভাগেও শক্তিশালী পিএসজি। এই মৌসুমেই তারা দলে টেনেছে জর্জিনিও ভিনালডাম, সার্জিও রামোস ও আশরাফ হাকিমির মতো ফুটবলারকে। সবমিলিয়ে এই মৌসুম থেকে পিএসজি হয়ে উঠল ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে শক্তিশালী দল। যাদের একটাই স্বপ্ন, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা। মেসির স্বপ্নও তাই।

মন্তব্য বন্ধ আছে তবে ট্র্যাকব্যাক ও পিংব্যাক চালু রয়েছে।