করল্যাছড়ি অমৃতাঙ্কুর বৌদ্ধবিহারে উদযাপিত ১৯তম কঠিন চীবর দানোৎসব

৬৬

করল্যাছড়ি অমৃতাঙ্কুর বৌদ্ধবিহারে উদযাপিত ১৯তম কঠিন চীবর দানোৎসব

।। আলোকিত লংগদু ডেক্স ।।
দানোত্তম কঠিন চীবর দানোৎসবকে ঘিরে পার্বত্য জনপদে চলছে কঠিন দানোৎসব অনুষ্ঠান। এলক্ষ্যে নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্যদিয়ে রাঙামাটির লংগদু উপজেলার আটারকছড়া ইউনিয়নের করল্যাছড়ি অমৃতাঙ্কুর বৌদ্ধ বিহারে উদযাপিত হয়েছে ১৯তম দানোত্তম কঠিন চীবর দানোৎসব-২১।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে বুধবার শুরু হয়ে বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় ২দিনব্যাপী ধর্মীয় কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসব কর্মসূচীর মধ্যে বুদ্ধপূজাদান, বুদ্ধমূর্তিদান, সংঘদান, অষ্টপরিস্কারদান, কঠিন চীবরদান, পঞ্চশীল প্রার্থনা, হাজার বাতিদান, ধর্মীয় দেশনা, কল্পতরু প্রদক্ষীণ ও উৎসর্গ সহ নানাবিধ দান উলে­খযোগ্য।

দানোৎসবকে ঘিরে পূণ্যলাভের আশায় দূর দূরান্ত থেকে হাজারোধিক পূর্ণার্থীদের আগমন ঘটে গোটা বিহার এলাকায়। বিশ্বের সকল প্রাণির হিতসুখ ও মঙ্গল কামনায় এবং মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে পরিত্রানের জন্য ভিক্ষু সংঘের সমীপে নিবেদন করে বিশেষ প্রার্থণা।
স্মরণ করা হয় মহাসাধক সাধনানন্দ মহাস্থবীর বনভান্তেকে। সাধু সাধু ও বুদ্ধের জয়ধবনিতে মুখর হয়ে উঠে গোটা বিহার এলাকা। বৃহ®পতিবার দুপুরে কল্পতরু ও কঠিন চীবরকে পুরো বিহার এলাকয় প্রদক্ষীণ করে আনন্দ শোভাযাত্রা করা হয়। পরে শুরু হয় কঠিন দানোৎসব।

অনন্ত চাকমার অনুষ্ঠান পরিচালনায় পঞ্চশীল পাঠ করেন যমুনা চাকমা। বিশেষ প্রার্থণা পাঠ করেন, করল্যাছড়ি অমৃতাঙ্কুর বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ আদিরতœ ভিক্ষু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, আটারকছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মঙ্গল কান্তি চাকমা। অথিতি হিসেবে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ঝান্টু।

বনভান্তেুর অমীয় বাণি দিয়ে পূর্ণার্থীদের মাঝে ধর্মীয় দেশনা দেন বামে আটারকছড়া প্রশান্তি অরণ্য কুঠিরের বিহার অধ্যক্ষ সুপ্রিয় ভান্তে, পার্বত্য ভিক্ষু সংঘের লংগদু উপজেলার সভাপতি সুগত লঙ্কার ভান্তে ও আর্য্য শ্রী ভান্তে। এসময় অন্যান্য ভিক্ষুগন উপস্থিত ছিলেন।

ধর্মীয় দেশনায় ভিক্ষুরা বলেন, বুদ্ধধর্মে কঠিন চীবরদানই হচ্ছে শ্রেষ্ট দান। গৌতম বুদ্ধের প্রধান সেবিকা বিশাখা ২৪ঘন্টার মধ্যে তুলা থেকে সুতা বুনে এবং সেই সুতা থেকে চীবর বুনে গৌতম বুদ্ধকে দান করেছিলেন। তাই এই চীবরদানকেই শ্রেষ্ট দান বলা হয়ে থাকে। কঠিন চীবরদান একটি কঠিন সাধনার বিষয়। যা সহজে যে কেউ করতে পারেন না।

মন্তব্য বন্ধ আছে তবে ট্র্যাকব্যাক ও পিংব্যাক চালু রয়েছে।